ঢাকা, মার্চ ২৬, ২০১৯, ১২ চৈত্র ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ১৮:২৯:৩৯

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

কিমকে ‘পছন্দ’ করায় উ.কোরিয়ার বিরুদ্ধে আরোপিত নতুন নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার ঘোষণা ট্রাম্পের ইয়েমেনে হাজার হাজার লোকের মৃত্যু : মানবিক সংকট চরমে মাদুরোকে ক্ষমতাচ্যুত করতে ‘সব ধরনের পদক্ষেপের’ কথা ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র : ট্রাম্প রাইস্টচার্চে হামলায় নিহত সকলকে সনাক্ত নিউজিল্যান্ডে নিষিদ্ধ হচ্ছে অ্যাসাল্ট ও সেমি-অটোমেটিক রাইফেলস নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলার শিকার ৩ বছরের শিশু থেকে ৭৭ বছরের বৃদ্ধ ইন্দোনেশিয়ার পাপুয়ায় আকস্মিক বন্যায় অন্তত ৫০ জনের মৃত্যু বাংলাদেশের উন্নতি সবসময়ই ভারতের জন্য আনন্দের বিষয় : মোদী ইসরাইল কেবলই ইহুদিদের জন্য : নেতানিয়াহু বিশ্বব্যাপী অস্ত্রের ক্রেতা হিসেবে প্রথম অবস্থানে সৌদি আরব

স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী তাদের পা ধুয়ে দিচ্ছেন, স্তম্ভিত পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা!

| ১৩ ফাল্গুন ১৪২৫ | Monday, February 25, 2019

স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী তাদের পা ধুয়ে দিচ্ছেন, স্তম্ভিত পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা!

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : শহরের ময়লা-আবর্জনা পরিস্কার করা যাদের নিত্যদিনের কাজ, তাদের পা ধুয়ে সম্মান জানালেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মোদি যে নজির গড়লেন পৃথিবীর আর কোনো শাসক তা করেছেন কিনা তা গবেষণার বিষয়।

রোববার কুম্ভমেলায় গিয়ে একে একে পাঁচজন পরিচ্ছন্নতাকর্মীর পা ধুয়ে দেন মোদি।শুধু পা ধুয়ে দেন নি, তাদের পা নতুন তোলায়ে দিয়ে মুছেও দিয়েছেন।একজন সরকার প্রধানের এমন বদান্যতায় অবাক পরিচ্ছন্নকর্মীরা।

উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজে গঙ্গা, যমুনা, সরস্বতী, নদীর সংযোগস্থলে প্রতিবার বসে কুম্ভমেলা। এতে প্রতিবার স্নান করতে বহু পুণ্যার্থীর সমাগম হয়। বহু মানুষের চাপ পড়ায় ঘাট পরিস্কার রাখাটাই চ্যালেঞ্জ। যারা এই কাজটি করেন তাদের প্রতি সম্মান দিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

এদিন পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা বসেন চেয়ারে। আর নিচে একটি মোড়ায় বসে পাত্রে পানি নিয়ে পরিচ্ছন্নকর্মীদের পায়ে সাবান মাখিয়ে দেন খোদ প্রধানমন্ত্রী। পরে পরম মমতা নিয়ে পা ধুইয়ে দেন। সেই পা মুখে দেন নতুল তোয়ালে দিয়ে।

পা ধুয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখানে ২০ হাজারের বেশি ডাস্টবিন, ১ লাখ টয়লেট রয়েছে। ভাবা যায়, কতটা কঠোর পরিশ্রম করেছেন পরিচ্ছন্নকর্মীরা।

পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের কাজের প্রশংসা করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, এরা রোজ ভোরে ঘুম থেকে উঠেন, দেরি করে ঘুমোতে যান। রোজ সকাল ও রাতে তারা সড়কে থাকেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে শহর পরিচ্ছন্ন করেন। এরা কোনো প্রশংসা চান না, সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। এরা আমার ভাই।

মোদি যাদের পা ধুয়ে দিয়েছেন তাদের মধ্যে নরেশ কুমার বলেন, এমন যে কিছু হবে, তা তারা জানতেনই না। স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী তাদের পা ধুয়ে দেয়ায় তারা স্তম্ভিত।

পরিচ্ছন্নতাকর্মী জ্যোতি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে এত সম্মান পাব কোনোদিন ভাবিনি। কতদিন কুম্ভে কাজ করছি তাও জানতে চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আর মুগ্ধ পেয়ারে লাল বলেন, উনিই যেন ফের প্রধানমন্ত্রী হন।