ঢাকা, নভেম্বর ২০, ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ১৪:০৭:৩২

সারা দেশে জাতীয় শোকদিবস পালিত

দেশের খবর, প্রধান সংবাদ | ১ ভাদ্র ১৪২৫ | Thursday, August 16, 2018

 

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বুধবার সকালে খুলনা মহানগরে শোকর‌্যালি বের করা হয়।

সারা দেশে বিনম্র ও সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করা হয়েছে স্বাধীনতার স্থপতি ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। একই সঙ্গে স্মরণ করা হয়েছে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকদের হাতে নিহত শহীদদের।

আজ বুধবার জাতীয় শোক দিবস। স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদতবার্ষিকী। ১৯৭৫ সালের শোকাবহ এ কালোদিবসে সেনাবাহিনীর কিছুসংখ্যক বিপথগামী সদস্য ধানমণ্ডির বাসভবনে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে।

ঘাতকরা শুধু বঙ্গবন্ধুকেই হত্যা করেনি, তাদের হাতে একে একে প্রাণ হারিয়েছেন বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিণী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, বঙ্গবন্ধুর সন্তান শেখ কামাল, শেখ জামাল ও শিশু শেখ রাসেলসহ পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজি জামাল।

পৃথিবীর এই জঘন্যতম হত্যাকাণ্ড থেকে বাঁচতে পারেননি বঙ্গবন্ধুর অনুজ শেখ নাসের, ভগ্নিপতি আবদুর রব সেরনিয়াবাত, তার ছেলে আরিফ, মেয়ে বেবি ও সুকান্ত, বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে যুবনেতা ও সাংবাদিক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক শেখ ফজলুল হক মণি, তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আরজু মনি এবং আবদুল নাঈম খান রিন্টু ও কর্নেল জামিলসহ পরিবারের ১৬ জন সদস্য ও ঘনিষ্ঠজন। এ সময় বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা বিদেশে থাকায় প্রাণে রক্ষা পান।

সারা দেশে নানা কর্মসূচির মাধ্যমে পালিত হয়েছে জাতীয় শোক দিবস। আমাদের প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন :

মুহাম্মদ আবু খৈয়ব, খুলনা : সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গেই খুলনার সব সরকারি-বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার মধ্য দিয়ে শোক দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। সকালে একটি শোকর‌্যালি নগরীর নিউ মার্কেট থেকে যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশ বেতার খুলনার প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং তাঁর পরিবারের অন্য সদস্যদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

এ সময় সেখানে অংশগ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, খুলনা সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার, পুলিশ কমিশনার, অতিরিক্ত ডিআইজি, জেলা প্রশাসক, মুক্তিযোদ্ধাসহ সব বিভাগীয় ও জেলা অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এরপর একটি র‍্যালি বের হয়। যেখানে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র-শিক্ষকরা অংশগ্রহণ করেন। এরপর জেলা প্রশাসন খুলনার উদ্যোগে অফিসার্স ক্লাব মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষ্যে কবিতা পাঠ, রচনা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, হামদ ও নাত এবং মিলাদ মাহফিল ও মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। বাদ জোহর কালেক্টরেট মসজিদ, পুলিশ লাইন জামে মসজিদ ও টাউন জামে মসজিদসহ নগরীর বিভিন্ন মসজিদে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া-মোনাজাতের আয়োজন করা হয়।

কে এম সবুজ, ঝালকাঠি : সকালে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরের একটি শোকর‌্যালি বের করা হয়। জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হকের নেতৃত্বে প্রশাসন ও রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ র‌্যালিতে অংশ নেয়। শোকর‌্যালি শেষে স্থানীয় শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। এরপর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে শোক দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ ছাড়াও আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন দিনব্যাপী শোক দিবস উপলক্ষে নানা কর্মসূচির আয়োজন করে।

আইয়ুব আলী, ময়মনসিংহ: বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, আলোচনা সভা, জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত, দলীয় ও কালো পতাকা উত্তোলন, কালোব্যাজ ধারণ, রক্তদান কর্মসূচি, দুস্থদের মধ্যে খাবার বিতরণ ও বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ময়মনসিংহে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।

সকালে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জাতীয়, দলীয় ও কালো পতাকা উত্তোলন এবং শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে দুস্থদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়। কর্মসূচিগুলোতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জহিরুল হক খোকা, সহসভাপতি আমিনুল হক শামীম, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট  মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান, পৌর মেয়র ইকরামুল হক টিটু, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট নূরুজ্জান খোকন, আওয়ামী লীগ নেতা কাজি আজাদ জাহান শামীম, আহসান মো. আজাদ, সামিউল আলম লিটনসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়াও সরকারি, বেসরকারি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা আয়োজনে দিবসটি পালন করেছে।

সাবিনা ইয়াসমিন শ্যামলী, কুষ্টিয়া : সকালে শহরের মজমপুরে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেন ও পুলিশ সুপার এস এম মেহেদী হাসান। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে কুষ্টিয়ার প্রশাসনিক কর্মকর্তা, আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে শহরে একটি শোকর‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

রশিদ আল মুনান, পিরোজপুর : সকালে বঙ্গবন্ধু চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষে জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও পৌরসভার মেয়র মো. হাবিবুর রহমান মালেক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হাকিম হাওলাদারসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে একটি শোক র‌্যালি শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহরের টাউন ক্লাব স্বাধীনতা মঞ্চে এসে শেষ হয়।  পরে সেখানে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দোয়া মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। দোয়া শেষে দুস্থদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়।

এ বি এম ফজলুর রহমান, পাবনা : সকালে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ দুর্জয় পাবনায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লাল, জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন, পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম, আনসার ও ভিডিপির জেলা কমান্ড্যান্ট ড. লুৎফর  রহমানসহ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন।

পরে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরে বিশাল শোক র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে শুরু হয়ে শহর প্রদক্ষিণ শেষে রফিকুল ইসলাম বকুল পৌর মুক্ত মঞ্চে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালিতে সরকারি কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেন।

শফিকুল ইসলাম শফিক, মাগুরা : দিবসটি উপলক্ষে আয়োজিত শোক র‌্যালি জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার, সংসদ সদস্য এটিএম আব্দুল ওয়াহ্হাব, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পঙ্কজ কুন্ডু, জেলা প্রশাসক আতিকুর রহমানসহ জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মী, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, কর্মচারী র‍্যালিতে অংশ নেন। র‌্যালি শেষে শহরের নোমানী ময়দান শহিদ বেদীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য দেওয়া হয়। পরে আছাদুজ্জামান মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা।

মঈনউদ্দিন সুমন, মুন্সীগঞ্জ : সকাল ১০টার দিকে জেলা কালেক্টরেট মাঠ প্রাঙ্গণ থেকে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সরকারি, আধাসরকারি, বেসরকারি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে শোক র‌্যালি বের হয় এবং জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে গিয়ে শেষ হয়। এরপর সেখানে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন ওয়ার্ডে দুস্থদের মধ্যে খাবার বিতরণ করেছে আওয়ামী লীগ ও এর বিভিন্ন সহযোগী সংগঠন। পাশাপাশি নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা করে মিলাদ মাহফিলেরও আয়োজন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, সাংসদ মৃণাল কান্তি দাস, জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা, জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) হারুন অর রশীদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি রাসেল মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক ভবতোষ চৌধুরী নুপুর প্রমুখ।

শিহাব উদ্দিন বিপু, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে র‌্যালি, পুষ্পস্তবক অর্পণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সকালে স্থানীয় লোকনাথ দিঘীর পাড় থেকে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিপুল সংখ্যক জনসাধারণের অংশগ্রহণে একটি শোকর‌্যালি বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে শহরের বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য র. আ. ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন খান প্রমুখ। পরে আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনে এক শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়।

সঞ্জিব দাস, ফরিদপুর : সকাল সাড়ে ৭টায় জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে পতাকা উত্তোলন করা হয়। এরপর সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন দলীয় নেতাকর্মীরা। পরে সকাল ৮টায় দলীয় কার্যলয়ের সামনে থেকে একটি শোকর‍্যালি বের হয়ে ফরিদপুর রাজেন্দ্র কলেজ মাঠ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা প্রশাসক বেগম উম্মে সালমা তানজিয়া, পুলিশ সুপার মো. জাকির হোসেন খান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. লোকমান হোসেন মৃধা ও আওয়ামী লীগের নেতৃবৃবন্দ।

এছাড়া জেলার মসজিদ, মন্দির, গির্জা, প্যাগোডা ও অন্যান্য ধর্মীয়প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা, রক্তদান ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে জায়গায় জায়গায় কাঙালি ভোজের আয়োজন করা হয়।

মো. লুৎফর রহমান মিঠু, ঠাকুরগাঁও : সকালে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সর্বস্তরের মানুষ শোক র‌্যালি বের করে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে ডাক বাংলো চত্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, প্রেসক্লাব, স্বাস্থ্য বিভাগসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

রফিকুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা : সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্বর থেকে শোকর‌্যালি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান শহর দিয়ে জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, বিচার বিভাগ, জেলা পরিষদ, জেলা আওয়ামী লীগ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ. জেলা আইনজীবী সমিতি, চুয়াডাঙ্গা পৌরসভা, রেডক্রিসেন্ট ইউনিট, ডায়াবেটিক সমিতি ও বিআরটিএসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের  শিক্ষক-ছাত্রছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।

শোকর‍্যালিতে জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ, জেলা ও দায়রা জজ রবিউল ইসলাম, পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ সামসুল আবেদীন খোকন ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) নূরজাহান খানম, পৌরসভার মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সী আলমগীর হান্নান, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি নুরুল ইসলাম, পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাড. শামসুজ্জোহা, জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. মাহবুব হোসেন মেহেদী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আবু হোসেন, ও  জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান কবীরসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে আলোচনা সভা ও প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শণ করা হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জসিম উদদীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ।

এস এম উমেদ আলী, মৌলভীবাজার: সকালে মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন স্থানীয় সাংসদ, জেলা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা, জেলা পরিষদ, পৌরসভা, জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা সায়রা মহসীন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল, পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান ফজলু, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহমদসহ অন্যরা।

এছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতারা এ সময় পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। শেষে একটি বিশাল শোকর‌্যালি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে এম সাইফুর রহমান অডিটোরিয়ামে গিয়ে মিলিত হয়। পরে সেখানে তাঁরা একটি আলোচনা সভা করেন।

আবুল কালাম আজাদ, লক্ষ্মীপুর: সকালে দিবসটি উপলক্ষে জেলা প্রশাসন ও বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। এরপর একটি শোকর‌্যালি শহর প্রদক্ষিণ করে। পরে আলোচনা সভা, কাঙালি ভোজ, দোয়া ও মাহফিলসহ জেলাব্যাপী নানা কর্মসূচি পালন করা হয়।

জেলা শহরে আয়োজিত এ আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল, জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল, জেলা পুলিশ সুপার আ স ম মাহাতাব উদ্দিন, পৌর মেয়র আবু তাহের, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু, সাবেক সভাপতি এম আলাউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম সালাহ উদ্দিন টিপু ও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম পাবেল প্রমুখ।

এম মুনীর চৌধুরী, নড়াইল : নড়াইলের কালিয়ায় যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে জাতীয় শোকদিবস। সকালে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শুরু হয়। পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, শোক র‌্যালি ও আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। এসব কর্মসূচিতে নড়াইল-১ আসনের সাংসদ কবিরুল হক মুক্তি, উপজেলা চেয়ারম্যান খান শামীমুর রহমান ওছি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী, পৌরসভার মেয়র মুশফিকুর রহমান লিটন উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে নড়াইলে অনুষ্ঠিত কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. এমদাদুল হক চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবাস চন্দ্র বোস, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলু প্রমুখ।

সুভাষ চৌধুরী, সাতক্ষীরা : সকালে জেলা প্রশাসকের অফিস চত্বর থেকে একটি শোকর‍্যালি বের করা হয়। র‌্যালিতে অংশ নেন সাতক্ষীরা সদর আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইফতেখার হোসেন, পুলিশ সুপার সাজ্জাদুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ মুক্তিযোদ্ধারা।

পরে শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে ‘অসমাপ্ত মহাকাব্য’ শীর্ষক প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী, রক্তদানসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। এছাড়াও সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব দিবসটি পালন উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করে।

শাহজাহান সিরাজ মিঠু, জয়পুরহাট : জয়পুরহাটে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান, কালো ব্যাজ ধারণ, স্বেচ্ছায় রক্তদান, দোয়াসহ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে জাতীয় শোক দিবসটি পালিত হয়েছে। জয়পুরহাট পৌরসভার সহযোগিতায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সকালে জয়পুরহাট কালেক্টরেট ময়দান থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। র‍্যালিটি শহরের শহীদ ডা. আবুল কাশেম ময়দানে গিয়ে শেষ হয়।

পরে সেখানে আয়োজিত আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শামছুল আলম দুদু, জয়পুরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হোসেন, পুলিশ সুপার রশীদুল হাসান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান রকেট প্রমুখ।

হালিম খান, নাটোর : নানা আয়োজনে নাটোরেও পালিত হয়েছে জাতীয় শোক দিবস। সকালে সিংড়া উপজেলা পরিষদ চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকসহ প্রশাসন ও দলীয় নেতৃবৃন্দ। এ সময় নাটোর শহরের কান্দিভিটা দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা। এ ছাড়া জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি শোকর‍্যালি বের করা হয়। পরে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও খাবার বিতরণের মাধ্যমে দিনটি পালন করা হয়।

আবু তাহের মুহাম্মদ, খাগড়াছড়ি : খাগড়াছড়িতে শোকর‍্যালি ও আলোচনা সভা করেছে জেলা প্রশাসন, জেলা আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠন। সকালে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে খাগড়াছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ থেকে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণে শোকর‌্যালি বের করা হয়। শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে টাউন হল প্রাঙ্গণে গিয়ে র‍্যালিটি শেষ হয়। সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে তাঁরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

টাউন হলে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শরণার্থী পুনর্বাসন বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান (প্রতিমন্ত্রী) কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী ও পৌর মেয়র রফিকুল আলমসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ কথা বলেন।

অন্যদিকে, জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলো আলাদাভাবে শোকর‌্যালি, মিলাদ মাহফিল, আলোচনা সভা ও কাঙালি ভোজের আয়োজন করে।

দিবসটি উপলক্ষে বিশেষ মেডিকেল ক্যাম্পের আয়োজন করে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ও  বিএমএ। খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে আয়োজিত এই ক্যাম্পে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ওষুধ বিতরণ করা হয়। এছাড়াও টাউন হল প্রাঙ্গণে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করা হয়। জেলার ৫০ জন চিকিৎসক এ চিকিৎসা সেবা দেন।

নাফিজ আশরাফ, নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলো বেলা ১১টায় নগরীর দুই নম্বর গেটে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।               সেখানে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনসহ দলীয় নেতৃবৃন্দরা। এরপর দলীয় কার্যালয়ে একটি আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে নগরীর চাষাঢ়া বিজয় স্তম্ভে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার। এ ছাড়া দলীয় সংগঠনগুলো বিভিন্ন জায়গায় রান্না করা খাবার বিতরণের মাধ্যমে আজ জাতীয় শোক দিবস পালন করেন।

আলমগীর হোসেন, ভালুকা : ভালুকা উপজেলার শিল্প এলাকায় কাঙালি ভোজের আয়োজন করা হয়। এই ভোজে স্থানীয় এমপি ডা. এম আমান উল্লাহ, ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা হাজি রফিকুল ইসলামসহ উপজেলা ও ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে একটি শোকর‍্যালি বের করা হয়। এ ছাড়াও উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে পৃথক পৃথকভাবে শোকর‌্যালি ও কাঙালি ভোজের আয়োজন করেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা।

জাহিদুর রহমান : সকালে সাভার উপজেলা চত্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাভারের সংসদ সদস্য ডা. এনামুর রহমান। এ সময় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে সাভার উপজেলা প্রশাসন, সাভার তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তারাও ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। শেষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে একটি শোকর‍্যালি বের হয়। র‌্যালিটি ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক প্রদক্ষিণ করে একই জায়গায় এসে শেষ হয়। পরে উপজেলার হলরুমে বিশেষ দোয়া করা হয়।

এদিকে সাভারের বিভিন্ন স্থানে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা বঙ্গবন্ধুর শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে গণভোজের আয়োজন করে। এ ছাড়া আশুলিয়ার বিভিন্ন স্থানে দিনটি উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। অন্যদিকে, ধামরাই উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় গণভোজের আয়োজন করেন ধামরাইয়ের সংসদ সদস্য এম এ মালেক।

মো. জালাল উদ্দিন, কুমিল্লা: সকালে নগরীর টাউন হল থেকে জেলা প্রশাসন ও মহানগর আওয়ামী লীগ একটি শোকর‌্যালি বের করে। নগর উদ্যানে তাঁরা বঙ্গবন্ধুর  ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। র‌্যালিতে নেতৃত্ব দেন কুমিল্লা সদর আসনের সাংসদ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজি আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার ও জেলা প্রশাসক মো.আবুল ফজল মীর।

এদিকে, কুমিল্লা নগরীর মডার্ন কমিউনিটি সেন্টারে জাতীয় শোক দিবসের দোয়া ও আলোচনা সভার আয়োজন করেন কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আনজুম সুলতানা সীমা।

কাকন রেজা, শেরপুর : জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করা, কালো পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে শেরপুরে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। সকালে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন জাতীয় সংসদের হুইপ আতিউর রহমান আতিক। পরে জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব, পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

এ ছাড়াও জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে একটি শোকযাত্রা শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে শিল্পকলা একাডেমিতে গিয়ে শেষ হয়। দুপুরে শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কীর্তির ওপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে, আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলো জেলা জুড়ে দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে। এর মধ্যে রয়েছে ভাষণ প্রচার, কাঙালি ভোজ, গণভোজ ও আলোচনা সভা।

আব্দুল আজিজ শিশির, শরীয়তপুর : দিবসটি উপলক্ষে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার নরকলিকাতা গ্রামে সাবেক আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক প্রতিষ্ঠিত মজিদ জরিনা ফাউন্ডেশন স্কুল অ্যান্ড কলেজের উদ্যোগে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল সাড়ে ৯টায় কলেজটিতে সাবেক আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক ও নড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যান এ কে এম ইসমাইল হকসহ শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে শিশুদের মধ্যে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়।

মিজানুর রহমান, ঝিনাইদহ : সকালে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে স্থানীয় পুরাতন ডিসি কোর্ট চত্বর থেকে একটি শোকর‍্যালি বের করা হয়। এটি জেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে প্রেরণা একাত্তর চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষে ডিসি কোর্ট চত্বরে আয়োজিত আলোচনা সভায় অংশ নেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টুসহ অনেকে ।

এদিকে, জেলা কৃষক লীগ, ছাত্রলীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ, যুবলীগ বিভিন্ন স্থানে আলোচনা সভা ও গণভোজের মধ্য দিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে। ঝিনাইদহ জেলা প্রেসক্লাব দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করে। প্রেসক্লাবের সভাপতি আলাউদ্দিন আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। এছাড়াও জোহরের নামাজের পরে বিশেষ মোনাজাত ও ধর্মীয়  উপাসনালয়ে প্রার্থনার আয়োজন করা হয়।

মো. আক্তারুজ্জামান রঞ্জন, আশুগঞ্জ : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলায় যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাতবার্ষিকী পালন করেছে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ।

সকালে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ, কাঙালিভোজ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আশুগঞ্জ হাজি আব্দুল জলিল উচ্চ বিদ্যালয়ে আয়োজিত কাঙালিভোজে নেতৃত্ব দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক আবু নাসের আহমেদ। এ ছাড়া উপজেলা শ্রম কল্যাণকেন্দ্রে আওয়ামী লীগের অপর পক্ষের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. হানিফ মুন্সির নেতৃত্বে পৃথক কাঙালিভোজ অনুষ্ঠিত হয়। এ ছাড়াও উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় ব্যাপক আয়োজনের মধ্য দিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়।

কাজী রাশেদ, চান্দিনা : কুমিল্লার চান্দিনায় সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মরণে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এ সময় একটি শোকর‍্যালি বের করা হয়। র‍্যালিটি উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এসে শেষ হয়। পরে উপজেলা মিলনায়তনে একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এস এম জাকারিয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. আলী আশরাফ। অন্যদের মধ্যে  উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তপন বকসী, পৌর মেয়র মো. মফিজুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, স্কুল-মাদ্রাসার শিক্ষক ছাত্রসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

বিশ্বজিৎ সাহা, নরসিংদী: নরসিংদীতে দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়েছে। এসব কর্মসূচি গ্রহণ করে নরসিংদী জেলা প্রশাসন ও জেলা আওয়ামী লীগ। কর্মসূচিগুলোর মধ্যে ছিল জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করা, মাধবদী ও নরসিংদীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল উদ্বোধন, কাঙালিভোজ, মিলাদ মাহফিল ও মোনাজাত।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) নজরুল ইসলাম হীরু (বীর প্রতীক), নরসিংদী জেলা পরিষদের প্রশাসক আব্দুল মতিন ভূইয়া, নরসিংদী পৌরসভার মেয়র কামরুজ্জামান কামরুল, মাধবদীর পৌর মেয়র আলহাজ মোশাররফ হোসেন প্রধান মানিক, নরসিংদী চেম্বার অব কমার্সের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আলী হোসেন শিশিরসহ জেলা, সদর, ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পর্যায়ের আওয়ামী লীগের সব অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

শহীদুল হুদা অলক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ: জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের সরকারি কলেজ মোড়ে অবস্থিত মুজিব চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদ, জেলা প্রশাসক এজেডএম নূরুল হক, পুলিশ সুপার টিএম মোজাহিদুল ইসলামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। পরে একটি শোকর‌্যালি বের হয়। র‍্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সরকারি কলেজ শহীদ মিনারে এসে শেষ হয়।

সেখানে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য জীবনের নানান দিক নিয়ে আলোচনা করা হয়। এ সময় সেখানে যুবঋণের চেক বিতরণ করা হয়।

এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় চত্ত্বরেও আলোচনা সভা ও কাঙালি ভোজ অনুষ্ঠিত হয়েছে।