ঢাকা, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৭, ৩ পৌষ ১৪২৪, স্থানীয় সময়: ১৫:৫৮:৫৩

রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কিভাবে?

স্বাস্থ্য ও বিনোদন | ১৪ অগ্রহায়ন ১৪২৪ | Tuesday, November 28, 2017

 

রাগ থেকে ঝগড়া, বিষিয়ে ওঠে জীবন (প্রতীকী ছবি)

মানসিক স্বাস্থ্যের স্বাভাবিক একটি আবেগ রাগ। রাগের কারণে অনেক সময় আশপাশে লোকজনকে বকাঝকা এমনকি মন্দ কথা বললেও এটি সবসময়ই নেতিবাচক নয়। কারণ এর মাধ্যমেই আপনি বুঝতে পারেন কখন আঘাত পেয়েছেন এবং কখন দৃষ্টিভঙ্গি বা অবস্থানে পরিবর্তন জরুরি।

অবশ্য যদি কোনোভাবেই রাগকে নিয়ন্ত্রণ করতে না পারেন, তবে এটা আপনার ব্যক্তিগত জীবন এবং কর্মজীবনকে বিষিয়ে তুলবে। রাগকে বশে আনা বেশ কঠিন ব্যাপার। কিন্তু কয়েকটি সহজ কৌশল মাথায় রাখলে খুব সহজ হয়ে যাবে ব্যাপারটি।
মেডিটেশন করুন
রাগ বশে আনার ক্ষেত্রে মেডিটেশন বা ধ্যান খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি অনুশীলন করার জন্যে আপনাকে নিঃশ্বাসের দিকে গভীর মনোনিবেশ করতে হবে। ২০১৫ সালে পরিচালিত একটি মনস্তাত্ত্বিক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে, মেডিটেশন চর্চায় রাগ কমার পাশাপাশি বিষণ্নতাও কমে এবং মানুষ স্বাভাবিক জীবনে অভ্যস্ত হয়ে যান।

রাগ বশে আনার ক্ষেত্রে মেডিটেশন বা ধ্যান খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে

গভীরভাবে নিঃশ্বাস নিন
ওই মনস্তাত্ত্বিক গবেষণা অনুযায়ীই, নিঃশ্বাসের অনুশীলনের ফলে আপনার রাগ করার ক্ষমতা ধীরে ধীরে লোপ পেতে থাকে। সেই সঙ্গে আপনার রক্তচাপ স্বাভাবিক থাকে এবং শরীরে শান্তি আসে।
প্রণালি
·    আরাম করে চিত হয়ে শুয়ে পড়ুন

·    পেটের উপর হাত রাখুন

·    নাক দিয়ে ধীরে ধীরে নিঃশ্বাস নিন এবং পেট স্বাভাবিক রাখুন

·    কয়েক সেকেন্ডের জন্য নিঃশ্বাস ধরে রাখুন

·    এবার মুখ দিয়ে নিঃশ্বাস ছেড়ে দিন

তাৎক্ষণিক ফলাফলের জন্য স্ট্রেস বল দারুণ কাজে আসতে পারে

স্ট্রেস বল ব্যবহার করতে পারেন

তাৎক্ষণিক ফলাফলের জন্য স্ট্রেস বল দারুণ কাজে আসতে পারে। এটি চাপ দিয়ে আপনি চিন্তাসমূহকে মুক্ত করে দিন এবং পেশীকে আরামদায়ক অবস্থানে নিয়ে যান। অনেক সময় যাবত স্ট্রেস বলে চাপ দেওয়ার পর আপনার হাত যখন ব্যথা করা শুরু করবে, সেটিই একটি স্পষ্ট লক্ষণ যে আপনার রাগ এখন কমার পর্যায়ে চলে গিয়েছে। তাছাড়া এর মধ্যে আপনি ভুলেই যাবেন যে কেন রাগ কিংবা অভিমান করেছিলেন।