ঢাকা, মে ২৪, ২০১৮, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ০২:৪২:৪৫

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

‘রোহিঙ্গা সঙ্কট’ সমাধানে আন্তর্জাতিক আইনের পূর্ণ ব্যবহার প্রয়োজন : মাসুদ বিন মোমেন লিগ্যাল এইড অফিসে বিকল্প উপায়ে বিরোধ নিষ্পত্তি হচ্ছে যুদ্ধাপরাধের মামলায় ৩৩ তম রায়ের অপেক্ষা খালেদা জিয়ার জামিন বহাল, ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে আপিল নিস্পত্তির নির্দেশ গণপরিবহনে নারী নির্যাতন বন্ধে সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রণয়নের সুপারিশ শিশুশ্রম নিরসনে নানা উদ্যোগ : মালিকদের বিরুদ্ধে ১৩৪টি মামলা দায়ের ঢাবিতে আম পাড়তে গিয়ে ছাত্রের মৃত্যু যৌতুক দাবি করলে পাঁচ বছরের জেল, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ময়মনসিংহে বাস ও অটোরিক্সার মুখোমুখী সংঘর্ষে পিতা ও পুত্রসহ ৬ জন নিহত ফুলপুরে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

ফুলপুরে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

আইন ও মানবাধিকার | ২৬ বৈশাখ ১৪২৫ | Wednesday, May 9, 2018

 

ময়মনসিংহের ফুলপুর পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক সাদেকুর রহমান সাদেক। ছবি : সংগৃহীত

ময়মনসিংহের ফুলপুর পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক সাদেকুর রহমান সাদেককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। আজ বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ফুলপুরের পৌরসভার চরপাড়া মোড়ে এই হত্যাকাণ্ড ঘটে।

হালুয়াঘাট ও ফুলপুর থানা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. আলমগীর এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, রাজনৈতিক আধিপত্য বিস্তার নিয়ে পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন লিমনের সঙ্গে সাদেকের  দীর্ঘদিনের বিরোধ ছিল।

ঘটনার সময় সাদেক নকলা থেকে ফুলপুর বাসস্ট্যান্ডে নেমে রিকশায় করে বাড়ি যাচ্ছিলেন। এ সময় মিলন দলবল নিয়ে সাদেকের রিকশার গতিরোধ করে এবং তাঁকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতারি কুপিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয়রা সাদেককে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. প্রাণেশ পন্ডিত সাদেককে মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাশেদ হোসেন চৌধুরী, এএসপি মো. আলমগীর ও ফুলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মাহবুব আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং সাদেককে দেখতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান।

পরিস্থিতি অবনতির আশঙ্কায় ফুলপুর পৌর শহরের অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

হামলা চালিয়ে হত্যার ব্যাপারে ফুলপুর পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন লিমনের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি কথা বলেননি।