ঢাকা, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৯, ৭ ফাল্গুন ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ২৩:১১:৪১

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

আজ শুভ নিত্যনন্দ ত্রয়োদশী একুশে পদক পেলেন জেলে পরিবারের হরিশংকর জলদাস ২১ মে থেকে সব বেসরকারি টিভি বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ব্যবহার করবে বাংলাদেশ-ইউএই ৪টি সমঝোতা স্মারক সই বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় ধাপে বৃষ্টিতে মুসল্লীদের দুর্ভোগ : মঙ্গলবার সকালে আখেরী মোনাজাত রাষ্ট্রপতির ভাষণ বর্তমান সরকারের উন্নয়নের দলিল : সরকারি দল মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদান কোনোদিন ভুলবার নয় : তথ্যমন্ত্রী সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে দু’টি কমিটি গঠন করা হয়েছে : সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনে ৪৯ জনকে চূড়ান্তভাবে বিজয়ী ঘোষণা আরব আমিরাতের প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীতে প্রধানমন্ত্রী

পরিচ্ছন্নতায় নতুন রেকর্ড গড়েছে ঢাকা : এখন স্বীকৃতির অপেক্ষা

দেশের খবর | ১ বৈশাখ ১৪২৫ | Saturday, April 14, 2018

ঢাকা : নগরবাসীর সচেতনতার লক্ষ্যে পরিচ্ছন্নতায় আগের রেকর্ড ভেঙে ১৫ হাজার ৩১৩ জন নগরবাসীকে সঙ্গে নিয়ে রাস্তা ঝাড়ু দিয়ে নতুন রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা।
আগের রেকর্ডের চেয়ে তিন গুণ বেশি মানুষের উপস্থিতিতে এই রেকর্ড এখন গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতির অপেক্ষায়। এর আগে ভারতের গুজরাটে ২০১৭ সালের ২৮ মে বদোধারা শহরের মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন ৫ হাজার ৫৮ জন কর্মী নিয়ে ১ কিলোমিটার রাস্তা পরিষ্কার করে গিনেস বুকে নাম লেখায়।
‘মন সুন্দর যার সে রাখে দেশ পরিষ্কার’থ এমন স্লোগানে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) আয়োজিত প্রতীকি পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচির রেকর্ড জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উৎসর্গ করেন মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।
এই কর্মসূচিতে নিবন্ধিত ১৫ হাজার ৩১৩ জন নগরবাসী একযোগে গুলিস্তানের গোলাপ শাহ মাজার থেকে জিরো পয়েন্ট পর্যন্ত ১ মিনিট ঝাড়ু দেয়ার মাধ্যমে পরিচ্ছন্ন কর্মসূচি পালন করে।
ডিএসসিসি আয়োজিত এই কর্মসূচিতে নানা শ্রেণি পেশার মানুষ অংশ নেন। এর আগে কর্মসূচিতে অংশ নিতে সকাল ৭টা থেকেই ডিএসসিসি’র সামনে রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়। ডিএসসিসির পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের পাশাপাশি নগরবাসীও রেজিস্ট্রেশন করেন। সকাল সাড়ে ৯টায় মেয়র সাঈদ খোকন কর্মসূচি উদ্বোধন করেন। বেলা পৌনে ১১টায় কর্মসূচি শুরু হয়।
সকাল থেকে প্রবেশের একটা গেটে গণনা করা হয়। তবে বের হবার প্রতিটি পথে গণনা মেশিন ছিল। ১০টি টিম এই গণনার কাজ করে। এ ছাড়া অডিট টিমে ছিলেন ৫০ জন। অডিট টিমের নেতৃত্ব দিয়েছেন পিনাকী দাশ। তিনি জানিয়েছেন, ১৫ হাজার ৩১৩ জন প্রতীকী পরিচ্ছন্ন কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন।
ডিএসসিসি কর্তৃপক্ষ জানায়, স্বচ্ছ ঢাকা গড়তে নগরবাসীকে সচেতন করতে প্রতীকী এই কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এর মাধ্যমে পুরো নগরী পরিচ্ছন্ন না হলেও জনগণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি পাবে। পাশাপাশি এই শহরের নাম গিনেস ওয়ার্ল্ড বুকে লেখা থাকবে।
ডিএসসিসি ও রেকিট বেনকিজার বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে ‘ডেটল পরিচ্ছন্ন ঢাকা’ নামে এ কর্মসূচিতে সহায়তা দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।
কর্মসূচিতে জাতীয় স্কাউট, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি), ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি), ফায়ার সার্ভিস, নৃত্যশিল্পী, চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক, অভিনেতা, বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান থেকে লোকজন অংশ নিয়েছে।
জীবন ব্যবস্থায় পরিচ্ছন্নতা আনায় নগরবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, এই রেকর্ডের মধ্য দিয়ে বিশ্বের কাছে প্রমাণ করেছি, ঢাকাবাসী পরিষ্কার পরিচ্ছনতা সচেতন নাগরিক।
পল্টন মোড়ে অস্থায়ী মঞ্চে দাঁড়িয়ে সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সাঈদ খোকন বলেন, ‘আজকের এই কর্মসূচির মাধ্যমে রেকর্ড গড়া আমাদের মূল উদ্দেশ্য ছিল না। আমরা চেয়েছি নাগরিকদের মাঝে সচেতনতা তৈরি করতে। তাই এই পদক্ষেপ।’
পরিচ্ছন্ন দেশ ও জাতি গঠনে ঢাকাবাসীর এই প্রতীকী পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচি বিশ্ব রেকর্ড হয়ে থাকল একথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের শহর পরিষ্কারের পাশাপাশি আমাদের মন মানসিকতারও পরিবর্তন ঘটাতে হবে। তাহলে আমরা আগামী প্রজন্মকে একটি সুন্দর ঢাকা উপহার দিতে পারব।’
সংসদ সদস্য গাজী গোলাম দস্তগীর, সানজিদা খানম, প্রধান নির্বাচন কমিশনার খান মোহাম্মদ নূরুল হুদা, চিত্র নায়ক রিয়াজ, ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বেলাল, ডিএনসিসির প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের ছেলে নাবিদুল হক কর্মসূচিতে অংশ নেন।