ঢাকা, মার্চ ২৬, ২০১৯, ১২ চৈত্র ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ১৮:৩১:৫৮

পরকীয়ায় সাজার আইন নিয়ে শুনানি ৫ মার্চ

আইন ও মানবাধিকার, দেশের খবর | ১২ ফাল্গুন ১৪২৫ | Sunday, February 24, 2019

 

পরকীয়া করার অপরাধে সাজা-সংক্রান্ত দণ্ডবিধির ৪৯৭ ধারার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা রিটের শুনানির জন্য আগামী ৫ মার্চ দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট।

আজ রোববার রাষ্ট্রপক্ষের সময় আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি ইকবাল কবিরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী জিনাত হক বলেন, আগামী ৫ মার্চ অ্যাটর্নি জেনারেল এই মামলায় শুনানি করবেন। রিটের পক্ষে রিটকারী আইনজীবী ইশরাত হাসান উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ১১ ফেব্রুয়ারি এই রিট করা হয়।

রিটে ৪৯৭ ধারা কেন অসাংবিধানিক ও বাতিল ঘোষণা করা হবে না, এই মর্মে রুল জারির আর্জি জানানো হয়েছে। এ ছাড়া রিটে ৪৯৭ ধারা সংশোধনের নির্দেশনার আবেদনও রয়েছে। আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট দায়ের করেন।

পরে অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান বলেন, দণ্ডবিধির ৪৯৭ ধারা অনুযায়ী, কোনো স্ত্রী পরকীয়া করলে যাঁর সঙ্গে পরকীয়া করবেন, শুধু সেই ব্যক্তির বিরুদ্ধে শাস্তির বিধান রয়েছে। অথচ স্ত্রীর বিরুদ্ধে স্বামীর কিছুই করার নেই। একইভাবে স্বামী পরকীয়া করলে স্ত্রী স্বামীর বিরুদ্ধে বা যাঁর সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িত হবেন, তাঁর বিরুদ্ধে কোনো প্রতিকার পাবেন না। উপরন্তু স্বামী যদি কোনো বিধবা বা অবিবাহিত মহিলার সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন এবং স্ত্রী যদি স্বামীর অনুমতি সাপেক্ষে পরকীয়ায় জড়িত হয়, তা আইনত বৈধ।

অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান বলেন, এই আইন সংবিধানের ২৭, ২৮ ও ৩২ অনুচ্ছেদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক এবং এটা অদ্ভুত ও বৈষম্যমূলক।

রিটে আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং লেজিসলেটিভ ও ড্রাফটিং বিভাগের সচিবকে বিবাদী করা হয়েছে।