ঢাকা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ০৯:৩৩:২৬

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

জাতীয় সংসদ নির্বাচন : হাসিনা সরকারের ওপর আস্থা রাখছে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্র খুলনায় মন্দির থেকে প্রতিমার স্বর্ণালংকার চুরি জাতিসংঘ অধিবেশনকালে দুটি পুরস্কার পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী সরকারি বাসবভনে বন্দী ছিলাম, মিডিয়াকে বলা হয়েছে আমি অসুস্থ: সিনহা বাংলাদেশের সামনে ২৫৬ রানের চ্যালেঞ্জ রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে দীর্ঘ অবস্থানের কোন সুযোগ নেই : প্রধানমন্ত্রী সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত নারীর সুরক্ষায় প্রস্তাবিত আইনটি পাস হওয়া জরুরি : ডেপুটি স্পিকার পবিত্র আশুরা আগামীকাল জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগদিতে প্রধানমন্ত্রীর লন্ডনের উদ্দেশ্যে কাল ঢাকা ত্যাগ

ন্যায়বিচার নিশ্চিতকরণে সতর্ক থাকতে বিচারকদের প্রতি রাষ্ট্রপতির আহ্বান

দেশের খবর, প্রধান সংবাদ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৫ | Monday, August 13, 2018

image_printPrint

ঢাকা, ১৩ আগস্ট, ২০১৮ (বাসস) : রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বিচার প্রার্থীরা যাতে যথাযথ বিচার পায় সে ব্যাপারে সবসময় সতর্ক থাকতে বিচারক এবং সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে বিচারকদের একটি প্রতিনিধিদল আজ অপরাহ্নে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির কাছে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের বার্ষিক রিপোর্ট ২০১৭ পেশকালে তিনি আরো বলেন, ‘বিচার বিভাগ বিচার প্রার্থীদের সর্বশেষ প্রত্যাশার স্থল, তাই ন্যায়বিচার নিশ্চিতকরণে আপনাদেরকে আরো সক্রিয় হতে হবে।’
রাষ্ট্রপতি হামিদ রায় ঘোষণাকালে আইন সংক্রান্ত বিষয় সুস্পষ্ট ধারণা প্রদানে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতেও বিচারকদের প্রতি আহ্বান জানান। রাষ্ট্রপতির প্রেসসচিব জয়নাল আবেদীন বাসসকে এ কথা জানান।
সাক্ষাৎকালে প্রতিনিধিদলটি বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের কৌশলগত পরিকল্পনা এবং হাইকোর্ট ও আপিল বিভাগের মামলা নিষ্পত্তির অগ্রগতিসহ বার্ষিক রিপোর্টের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন।
রাষ্ট্রপতি এ ব্যাপারে তার পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। আবদুল হামিদ রিপোর্ট পেশের জন্য প্রধান বিচারপতি এবং প্রতিনিধিদলের অন্যান্য সদস্যদের ধন্যবাদ জানান।
প্রতিনিধিদলের সদস্যরা হলেন বিচারপতি মুহাম্মদ ইম্মান আলী, বিচারপতি মির্জা হোসেন হায়দার, বিচারপতি তারিক উল হাকিম, বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী, বিচারপতি সৈয়দ রিফাত আহমেদ, বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম, বিচারপতি মঈনুল ইসলাম চৌধুরী, বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এবং বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল জাকির হোসেন।