ঢাকা, জানুয়ারী ১৯, ২০১৮, ৬ মাঘ ১৪২৪, স্থানীয় সময়: ০৯:৩০:০০

নতুন বছরের সুস্থতায় করণীয়

স্বাস্থ্য ও বিনোদন | ১৯ পৌষ ১৪২৪ | Tuesday, January 2, 2018

 

নতুন বছরের শুরুতেই কিছু স্বাস্থ্যকর অভ্যাস শুরু করুন। ছবি : সংগৃহীত

নতুন বছরকে সামনে রেখে অনেকেই অনেক কিছু ভাবছেন। নতুন বছরকে সফল করতে পরিকল্পনাগুলো সাজিয়ে ফেলেছেন হয়তো এখন থেকেই। স্বাস্থ্য অনেক বড় সম্পদ। মানুষ এখন অনেক সচেতন স্বাস্থ্য নিয়ে। তাই নতুন বছরে নিজেকে সুস্বাস্থ্যের অধিকারী করার চিন্তা অনেকেই করছেন।

এই বছরের সকল সমস্যাগুলোকে মনে রেখে আগামী বছর আপনার স্বাস্থ্যকে ভালো রাখার জন্য প্রয়োজনীয় বিষয়গুলো নিয়ে অবশ্যই ভাবতে হবে এখন থেকেই।

চেকআপ

যাঁদের বয়স ত্রিশের ওপর, তাঁরা বছরের শুরুতেই শারীরিক চেকআপ করিয়ে নিলে পুরো বছর নিশ্চিত থাকতে পারবেন। আবার চোখ ও দাঁত বছরের শুরুতেই চেকআপ করিয়ে নিলে ভালো।

ওজন কমানো

যাঁদের ওজন বেশি, তাঁরা এখন থেকেই ভেবে নিন যে ২০১৮ সালে অবশ্যই ওজন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসবেন। বছরের শুরু থেকেই শুরু করতে হবে ওজন কমানোর চেষ্টা। যাঁদের ওজন কাম্য ওজনের চেয়ে কিছুটা বেশি, তাঁতারা নিজেরাই কমাতে পারবেন ওজন। আর যাঁদের ওজন কাম্য ওজনের তুলনায় আট থেকে ১০ কেজি বেশি, তাঁরা বছরের শুরুতেই একজন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে ২০১৮ সালেই নতুনভাবে নিজেকে সাজিয়ে ফেলুন।

জীবনযাত্রার পরিবর্তন

২০১৮ সালে যাতে জীবনটা অনেক সুন্দরভাবে গুছিয়ে নেওয়া যায়, তাই জীবনযাত্রা পরিবর্তনের রুটিন এখন থেকেই করে ফেলুন। ঘুমানোর সঠিক সময়, খাবারের সময়সূচি, ধূমপান বর্জন করা ছাড়াও আরো ছোট ছোট পরিবর্তনগুলো বছরের শুরুতেই শুরু করলে পাবেন খুবই ভালো ফলাফল।

দৈনিক হাঁটা

নতুন বছরের শুরুতেই দৈনিক ৩০ মিনিট হাঁটার প্রতিশ্রুতি করুন। দৈনিক ৩০ মিনিট হাঁটলে পুরো বছর নানা শারীরিক সমস্যা থেকে নিজেকে বিরত রাখতে পারবেন।

খাদ্যাভ্যাস

নতুন বছরে নিজের সুস্বাস্থ্যের জন্য খাদ্যের অভ্যাসগুলোর পরিবর্তন বছরের শুরু থেকেই শুরু করুন। কার্বহাইড্রেটকে পরিমিত করা, দৈনিক অন্তত দুই লিটার পানি পান করা, চিনি বা মিষ্টি এড়িয়ে যাওয়া, কোল্ডড্রিংকস বা ফাস্টফুড এড়িয়ে চলা- এই ছোট ছোট পরিবর্তনগুলো বছরের শুরুতেই শুরু করুন।

নিজেকে পরিবর্তন করার প্রথম পদক্ষেপ হলো নিজেকে সুস্থ রাখা। আর এই সুস্থতা বজায় রাখার জন্য করণীয় বিষয়গুলো বছরের প্রথম থেকেই শুরু করলে দেখবেন আপনার মধ্যে অনেক ইতিবাচক বিষয় কাজ করবে।

আপনার সুস্বাস্থ্য আপনার কর্মক্ষমতা ও দক্ষতাকে আরো বাড়িয়ে দেবে। এতে আপনার ২০১৮ সালের সফলতার চাবিকাঠি হয়ে কাজ করবে।