ঢাকা, এপ্রিল ১৯, ২০১৯, ৫ বৈশাখ ১৪২৬, স্থানীয় সময়: ০২:৩১:১৪

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

দক্ষ জনবল নেই, ৪২ হাজার ট্যাব কিনল ইসি! মেট্রোরেলের দেয়ালে বাসের ধাক্কা, বৃদ্ধা নিহত বঙ্গবন্ধুর ওপর নির্মিত নাটক, প্রতিযোগিতার জন্য ট্রাস্টের অনুমতির প্রয়োজন নেই ২১ এপ্রিল দিবাগত রাতে সারাদেশে পবিত্র লাইলাতুল বরাত প্রধানমন্ত্রীর ৫ দফা প্রস্তাবনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের শান্তিপূর্ণ প্রত্যাবাসন সম্ভব : স্পিকার বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস আজ পুরান ঢাকার ভবন ভেঙে ফ্ল্যাট করে দেয়া হবে : গণপূর্তমন্ত্রী হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্টের মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরুস্কার বিতরণ অগ্নিকান্ড রোধে প্রধানমন্ত্রীর ১৫টি নির্দেশনা মন্ত্রিসভায় গাজীপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আইনের খসড়া অনুমোদন

দক্ষ জনবল নেই, ৪২ হাজার ট্যাব কিনল ইসি!

দেশের খবর | ২৪ চৈত্র ১৪২৫ | Sunday, April 7, 2019

 

ভোটার তালিকা হালনাগাদ, ভোট চলাকালে যাবতীয় তথ্য আদান-প্রদান, দ্রুত ফলসহ নানাবিধ কাজের জন্য প্রায় ৪৬ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪২ হাজার ২০০ ট্যাব কিনেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তবে এসব ট্যাব ব্যবহারে দক্ষ জনবল আছে কি না, তা নিয়েই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

এসব ট্যাবের সঙ্গে সাপ্লাই অ্যান্ড ইনস্টলেশন অব ট্যাব অ্যান্ড ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সফটওয়্যার নামে সার্ভার ও সফটওয়্যারও কেনা হয়েছে বলে ইসি সূত্রে জানা গেছে।

ইসির ১৫ সদস্যের আলাদা তিনটি কমিটি গত ১২ মার্চ এসব ট্যাব, সফটওয়্যার ও সার্ভার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান থেকে বুঝে নেয়। তারপর সেটা দিয়ে তৃতীয় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কাজও করেছেন কর্মকর্তারা। তবে তাতে কাঙ্ক্ষিত ফল পাওয়া যায়নি। এ কারণে চতুর্থ ধাপে ব্যবহারের কথা থাকলেও তা করা হয়নি বলে ইসি সূত্রে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ইসির সিস্টেম অ্যানালিস্ট ফারজানা আখতার বলেন, ‘ভোটার তালিকা হালনাগাদ, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনসহ অন্যান্য নির্বাচনে ট্যাব ব্যবহারের বিষয়ে গত ৩১ জানুয়ারি কম্পিউটার সার্ভিসেস লিমিটেডের সঙ্গে একটি চুক্তি হয় ইসির। চুক্তি অনুযায়ী, এ প্রতিষ্ঠান মালামাল ও সফটওয়্যার সরবরাহ করবে বলে সিদ্ধান্ত হয়। এবং ট্যাব ব্যবহার-সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপনে আমি স্বাক্ষর করি।’

এ-সংক্রান্ত কমিটির সভাপতি ও ইসির অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেসুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘খুব সম্প্রতি এসব ট্যাব কেনার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এগুলো ভোটার তালিকা হালনাগাদ ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনসহ স্থানীয় সব নির্বাচনে ব্যবহার করা হবে। টেন্ডারের মাধ্যমে মোট ৪২ হাজার ২০০ ট্যাব কেনা হয়েছে। প্রায় ৪৬ কোটি টাকা খরচ হচ্ছে এসব ট্যাব কিনতে। এগুলো সব চায়না প্রোডাক্ট। তবে এখনো টাকা দেওয়া হয়নি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানকে।’

তৃতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে ট্যাবগুলো ব্যবহার করে ইসি ভালো ফল পায়নি কেন—এমন প্রশ্নের জবাবে নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘বিভিন্ন কারণে এ সমস্যা হতে পারে। প্রথমত, এসব ব্যবহার করার মতো দক্ষ জনবল আমাদের নেই। দ্বিতীয়, প্রযুক্তিগত জিনিসে তো সমস্যা থাকতেই পারে। এ ছাড়া ইন্টারনেটের গতি না থাকলেও ঝামেলা হতে পারে।’

নির্বাচন কমিশনার আরো বলেন, ‘আগামীতে ভোটার তালিকা হালনাগাদ করা হবে, সেখানে এই ট্যাব ব্যবহার করা হবে। তার আগে আমাদের দক্ষ জনবল গড়ে তুলতে হবে। এর ব্যবহার সম্পর্কে ভালো করে জানাতে হবে। এরপর সব ঠিক হয়ে যাবে। প্রথম প্রথম তো কিছু সমস্যা থাকেই। সেগুলো আবার কেটেও যায়।’