ঢাকা, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ১৩:৪৮:০৭

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

বাংলাদশ মাইনরিটি ওয়াচের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস-২০১৮ পালিত। মনোনয়ন বাতিলের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল ইসিতে খারিজ বিএনপি নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করছে : আওয়ামী লীগ স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সজাগ থাকতে সেনা কর্মকর্তাদের প্রতি রাষ্ট্রপতির আহ্বান মনোনয়ন না পাওয়া দলের প্রার্থীদের মহাজোট প্রার্থীর পক্ষে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের অনুরোধ শেখ হাসিনার নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষতা অবলম্বন করছেন : ইনু রংপুর ৩ এ এরশাদের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগ : জাপাকে ছাড় দিচ্ছেন না ৯ প্রার্থী ভিকারুননিসা স্কুলের নতুন অধ্যক্ষ হাসিনা বেগম বাদ পড়লেন মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া ও ড. শামসুল মিথ্যা তথ্যে রাজস্ব ফাঁকি সম্পদশালীদের ব্যাংকে কোটিপতি ৭০০০০ আয়করে ১২০০০

গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমকে কলুষিত করছে জঙ্গি-সাম্প্রদায়িক অপশক্তি : তথ্যমন্ত্রী

দেশের খবর, প্রধান সংবাদ | ২১ আশ্বিন ১৪২৫ | Saturday, October 6, 2018

ঢাকা : মিথ্যাচার-গুজব থেকে গণমাধ্যমকে, সাইবার অপরাধ থেকে ডিজিটাল জগতকে এবং জঙ্গি-সন্ত্রাস থেকে গণতন্ত্রকে রক্ষাকেই এখনকার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ বলে বর্ণনা করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।
শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর র‌্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেন হোটেল বলরুমে ইংরেজি দৈনিক ঢাকা ট্রিবিউন আয়োজিত দু’দিনব্যাপী মিডিয়া কনক্লেভ ২০১৮-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।
ঢাকা ট্রিবিউনের প্রকাশক ড. কাজী আনিস আহমেদের সভাপতিত্বে ও সম্পাদক জাফর সোবহানের সঞ্চালনায় সজীব এই কনক্লেভে উপস্থিত দেশি-বিদেশি সাংবাদিকদের সামনে গণতন্ত্র, উন্নয়ন, ডিজিটাল পদ্ধতি ও গণমাধ্যমের প্রসারে বাংলাদেশের বিস্ময়কর অগ্রগতি তুলে ধরার পাশাপাশি প্রগতির পথের চ্যালেঞ্জগুলোও বর্ণনা করেন তথ্যমন্ত্রী।
ইনু বলেন, ‘সামরিক-স্বৈরতান্ত্রিক শাসনামলের তৈরি জঞ্জাল জঙ্গি-সাম্প্রদায়িক অপশক্তি ও তাদের দোসররা এখন রাজনীতিতে টিকে থাকার জন্য দু’টি জঘন্য কৌশল নিয়েছে। একদিকে তারা গণতন্ত্র ও নির্বাচনকে জিম্মি করে আইন ও বিচারের হাত থেকে রেহাই এবং কারামুক্তির অপচেষ্টা করছে, অন্যদিকে মিথ্যাচার-গুজব ছড়িয়ে গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে কলুষিত করছে।’
দেশের বিরুদ্ধে এই ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় জনগণ, সরকার ও গণমাধ্যমকে একযোগে কাজ করতে হবে, বলেন মন্ত্রী।
রাজনীতি বিশ্লেষক অধ্যাপক আফসান চৌধুরী, বাংলাদেশে এএফপি’র ব্যুরো প্রধান শফিকুল আলম, এনএইচকে’র ব্যুরো প্রধান পারভীন এফ চৌধুরী প্রমুখসহ ভারতের স্ক্রল পত্রিকার সম্পাদক নরেশ ফার্নান্দেজ, ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এশিয়া সম্পাদকীয় প্রধান হুগো রেস্টাল, নিক্কি এশিয়ান রিভিউ’র এডিটর-এট-লার্জ গুয়েন রবিনসন, দি ইকনোমিস্ট-এর দক্ষিণ এশিয়া প্রধান ম্যাক্স রোডেনবেক, সেন্টার ফর হিউম্যানিটারিয়ান ডায়ালগ-এর এশিয়া পরিচালক মাইকেল ভাটিকিওটিস এ কনক্লেভে অংশ নিচ্ছেন।