ঢাকা, জানুয়ারী ২০, ২০১৯, ৬ মাঘ ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ০৫:৫৫:৪৩

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

পূবালী ব্যাংকের অর্থ আত্মসাৎ মামলায় তিন ব্যবসায়ীকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ এমপিদের শপথ নেওয়ার বৈধতা নিয়ে আদেশ কাল ঢাকা উত্তর সিটির উপ-নির্বাচন হতে আইনগত বাধা নেই চালক সংকট কাটাতে লাইসেন্স প্রাপ্তির শর্ত শিথিল করল বিআরটিএ হিযবুত তাহরীরের ৬ জনের বিরুদ্ধে রায় ৩০ জানুয়ারি জাবালে নূরের মালিকের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য গ্রহণ ২২ জানুয়ারি সরকারি কৌঁসুলিদের পদত্যাগের আহ্বান আইনমন্ত্রীর তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু করেছে সরকার : আইনমন্ত্রী একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃতির দায়ে ব্যবসায়ীর ৭ বছর সাজা

কুমিল্লায় বাসে আগুন : খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর

আইন ও মানবাধিকার | ১৮ আশ্বিন ১৪২৫ | Wednesday, October 3, 2018

 

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে বাসে আগুন দিয়ে আটজন হত্যা মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।

আজ বুধবার হত্যা মামলাটির দুই দফা শুনানি শেষে কুমিল্লার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম ৫ নম্বর আমলী আদালতের বিচারক বিপ্লব দেবনাথ এই আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন খালেদার আইনজীবী অ্যাডভোকেট কাইমুল হক রিংকু।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান লিটন।

এর আগে গত ১২, ২০ ও ৩০ সেপ্টেম্বর মামলাটির শুনানির তারিখ ছিল।

অ্যাডভোকেট কাইমুল হক রিংকু বলেন, রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত আগে একাধিকবার হত্যা মামলাটির তারিখ দিয়েছিলেন। আমরা আদালতের চাহিদা অনুযায়ী সমস্ত কাগজপত্র প্রদান করেছি। সর্বশেষ আজও দুই দফা শুনানি শেষ খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। আমরা ন্যায়বিচার পাইনি। জামিন পেতে আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করব।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ভোরে ২০ দলীয় জোটের অবরোধের সময় চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুরে একটি বাসে পেট্রল বোমা ছুঁড়ে মারে দুর্বৃত্তরা। এতে আটজন যাত্রী দগ্ধ হয়ে মারা যান, আহত হন ২০ জন।

এ ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) নুরুজ্জামান বাদী হয়ে ৭৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় খালেদা জিয়াসহ বিএনপির শীর্ষস্থানীয় ছয়জন নেতাকে হুকুমের আসামি করা হয়। ৭৭ আসামির মধ্যে তিনজন মারা যান, পাঁচজনকে অভিযোগপত্র থেকে বাদ দেওয়া হয়।

খালেদা জিয়াসহ অপর ৬৯ জনের বিরুদ্ধে কুমিল্লা আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক ফিরোজ হোসেন