ঢাকা, নভেম্বর ২২, ২০১৮, ৮ অগ্রহায়ন ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ১৬:৫৫:৩৪

কনস্যুলেটেই হত্যা করা হয় সাংবাদিক খাসোগিকে : স্বীকার করল সৌদি আরব

| ২৪ কার্তিক ১৪২৫ | Thursday, November 8, 2018

 

সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে সৌদি আরব। দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে প্রাথমিক তদন্তের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, তুরস্কের ইস্তাম্বুলে কনস্যুলেটের ভেতরে খাসোগিকে হত্যা করা হয়। বিবিসি ও রয়টার্সের খবরে তা বলা হয়েছে।

শনিবার বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, খাসোগি সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করার পর কয়েকজনের সঙ্গে তার ‘ধস্তাধস্তি’ হয়। এ ঘটনার কিছুক্ষণ পরেই খাসোগির মৃত্যু হয়।

জামাল খাসোগিকে হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে সৌদির উপ-গোয়েন্দা প্রধান আহমাদ আল-আসিরি এবং ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মাদ বিন সালমানের জ্যেষ্ঠ নিরাপত্তারক্ষী সৌদ আল কাহতানিকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

খাশোগি হত্যাকাণ্ডে তদন্তের অংশ হিসেবে ১৮ জন সৌদি নাগরিককে আটক করা হয়েছে। একটি গোল টেবিল বৈঠকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, ওই ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করাটাই ছিল প্রথম গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। সৌদি রাজতন্ত্র দ্রুত এ ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করায় তিনি দেশটির প্রশংসা করেছেন।

গত ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশের পর থেকেই রাজপরিবারের নীতির কট্টর সমালোচক খাসোগির কোনো হদিস পাওয়া যাচ্ছিলো না। সৌদি গুপ্তচররা কনস্যুলেটের ভেতরেই নির্যাতন ও হত্যার পর লাশ গুম করে ফেলেছে বলে অভিযোগ করে তুরস্ক। তবে রিয়াদ এ অভিযোগ বারবার অস্বীকার করেছে।

সৌদি রাজপরিবারে নীতির সামালোচনার কারণে প্রাণভয়ে প্রায় এক বছর আগে যুক্তরাষ্ট্রে স্বেচ্ছা নির্বাসনে যান তিনি। এরপর গত ২ অক্টোবর তুর্কি বাগদত্তা হেতিস চেঙ্গিসকে বিয়ে করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জোগাড় করতে ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে ঢুকেছিলেন জামাল খাসোগি। এ সময় চেঙ্গিস কনস্যুলেট ভবনের বাইরে অপেক্ষা করছিলেন। নয় ঘণ্টা অপেক্ষার পরও খাসোগি কনস্যুলেট থেকে বের না হলে তুর্কি কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেন হেতিস।