ঢাকা, আগস্ট ১৭, ২০১৮, ২ ভাদ্র ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ১৫:১০:২৫

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

রবি ঠাকুরের ছবি দিয়ে সারার ইনস্টাগ্রামে অভিষেক নেপালকে হারিয়ে শেষ চারে বাংলাদেশের মেয়েরা বুদ্ধিমান মানুষের ৫ বৈশিষ্ট্য পনেরই আগস্টের কাল রাত্রীকে উপজীব্য করে প্রথম মঞ্চ নাটক ‘শ্রাবণ ট্র্যাজেডি’র উদ্বোধনী মঞ্চায়ন সোমবার পাকিস্তানকে গোল বন্যায় ভাসিয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছবি আঁকলেন দেশের ৫০ জন শিল্পী শামির ক্যারিয়ারে বাধা হতে পারেনি স্ত্রীর সঙ্গে শীতল সম্পর্ক বরেণ্য সংগীতশিল্পী রুনা লায়লাকে ‘ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক ও পুরস্কার’ প্রদান অ্যালোভেরার আট পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তামিমের সেঞ্চুরিতে নয় বছর পর বিদেশের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জিতলো বাংলাদেশ

ইফতারে স্বাস্থ্যকর পানীয়

স্বাস্থ্য ও বিনোদন | ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ | Saturday, May 19, 2018

 

স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে ইফতার করা প্রত্যেক মুসলমানের প্রাপ্য। পুরো রোজা সুস্থভাবে সম্পাদন করার লক্ষ্যে নিরাপদ ও স্বাস্থ্যসম্মত পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করা জরুরি।

রোজা ভাঙার সময় আমরা প্রত্যেকেই একটি তরল জাতীয় খাবার পান করি। অনেক ঘণ্টা না খেয়ে, না পান করে আমরা যখন প্রথম রোজা ভাঙি, তখন প্রথম খাবারটি পান করি। রঙিন কেনা তরল খাবারের চেয়ে ঘরে তৈরি অনেক তরল খাবার রয়েছে, যা কি না আমাদের শরীরে প্রয়োজনীয় পুষ্টি সরবরাহ করে থাকে। তেমনি কয়েকটি স্বাস্থ্যকর তরল হলো :

১. ইসুবগুল ও তোকমার শরবত

এক টেবিল চামচ তোকমা ভিজিয়ে রেখে তার সঙ্গে এক চামচ ইসুবগুল ও সামান্য মধু বা গুড় মিশিয়ে ঘরে তৈরি করা যায় এই তরলটি। এটি কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে ও এসিডিটি প্রতিরোধে খুবই উপকারী।

২. লেবু ও মধুর শরবত

লেবু স্বাদমতো ও এক চা চামচ মধুর মিশ্রণে তৈরি হালকা রংবিহীন এই তরলটি শরীরকে চাঙ্গা করতে বা বিপাকের প্রক্রিয়া সক্রিয় করতে সাহায্য করে থাকে। প্রয়োজনীয় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও পানীয় হিসেবে পাওয়া যায় এই তরল।

৩. ডাবের পানি

এই স্বচ্ছ পুষ্টিকর তরলটির সঙ্গে আর কোনো তরলের তুলনা হয় না। রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণে, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে এই তরলের জুড়ি নেই। মাংসপেশির সুরক্ষায় ডাবের পানি অনেক সাহায্য করে। যে কেউ এই তরলটি পান করতে পারে। তবে যাদের এসিডিটি রয়েছে, তারা কিছু খেয়ে এর সঙ্গে খেলে এসিডিটি নাও হতে পারে।

৪. আখের গুড়ের শরবত

ঘরে তৈরি এই তরলটি আপনাকে শক্তি সরবরাহ করার পাশাপাশি আয়রন, পটাশিয়াম ছাড়াও নানা মিনারেলস প্রদান করবে। এটি আপনাকে অনায়াসে সারা দিনের ক্লান্তি দূর করবে।

. লাচ্ছি

দইয়ের লাচ্ছি ঘরে তৈরি করলে তার কোনো তুলনাই নেই। যারা ওজনাধিক্যে ভুগছে বা যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে, তারা লেবু ও লবণ দিয়ে লাচ্ছি খেতে পারবে। মিষ্টি লাচ্ছি গর্ভবতী মা, অল্প বয়সী যারা রোজা রাখছে এবং যারা কর্মজীবী, তাদের জন্য অনেক উপকারী তরল। ক্যালসিয়ামের চাহিদা পূরণে এই তরলের জুড়ি নেই।

. ঘরে তৈরি ফলের রস

ইফতারে মৌসুমি ফলের রস ঘরে তৈরি করে খেলেও ফলের পুষ্টি চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষায় অনেক সাহায্য করে থাকে। কিছুটা আঁশ নষ্ট হলেও শরীরকে চাঙ্গা ও সতেজ রাখতে ফলের রস বা জুস অনেক উপকারী। কাঁচা আমের জুস, বেলের শরবত, দুধ ও কলার সেক, মাল্টার জুস, আপেলের জুস, আনারস বা তরমুজের জুস আপনাকে এই রোজায় রাখবে প্রাণবন্ত।

রঙিন, প্যাকেটজাত তরল নয়, ঘরেই তৈরি করুন সুস্বাদু তরল, যা আপনাকে সুস্থ রাখার পাশাপাশি দেবে মানসিক প্রশান্তি। তাই ঘরে তৈরি তরল পান করুন এবং পুরো রোজা সুস্থভাবে শেষ করুন।

লেখক : প্রধান পুষ্টিবিদ, অ্যাপোলো হাসপাতাল।