ঢাকা, এপ্রিল ১৯, ২০১৮, ৬ বৈশাখ ১৪২৫, স্থানীয় সময়: ১৯:২৪:৪৬

এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

কচুয়ায় বল্লব দাসের বসতবাড়ি উচ্ছেদের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ : পরিদর্শনে বাংলাদেশ মাইনরিটি ওয়াচ প্রধানমন্ত্রীর সাহসী ঘোষণায় লন্ডন ষড়যন্ত্রে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি এখন হতাশ : ওবায়দুল কাদের পরিচ্ছন্নতায় নতুন রেকর্ড গড়েছে ঢাকা : এখন স্বীকৃতির অপেক্ষা বাংলা নববর্ষ বাঙালি সংস্কৃতির প্রাণের উৎস : স্পিকার রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশকে সহযোগিতা দেবে তাজিকিস্তান আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টি অংশ নেবে : এরশাদ যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী আগামীকাল সৌদি আরব ও যুক্তরাজ্যের উদ্দেশে যাত্রা করবেন সোনার মানুষ হওয়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে বাংলা নববর্ষ বরণ কোন অশুভ শক্তি যেন আর ক্ষমতায় আসতে না পারে : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ইন্টারনেটের গতি কমবে না, বিটিআরসির নির্দেশ

দেশের খবর | ৩০ মাঘ ১৪২৪ | Monday, February 12, 2018

 

চলমান মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধ করতে দেশে ইন্টারনেট গতি ধীর করে দেওয়ার নির্দেশের একদিনের মাথায় সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের তথ্য জানাল বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। ইন্টারনেট গতি নির্বিঘ্ন রাখারই সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

পরীক্ষা শুরুর দুই ঘণ্টা আগে আজ সোমবার সকাল ৮টা থেকেই সারা দেশে ইন্টারনেটের ধীরগতি পরিলক্ষিত হয়। ঘোষণা অনুযায়ী, এটি থাকার কথা ছিল সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত। কিন্তু ৯টার দিকে ইন্টারনেটের প্রায় স্বাভাবিক গতি ফিরে আসে।

ইন্টারনেট গতি স্বাভাবিক রাখার জন্য বিটিআরসির নির্দেশ পাওয়ার পর পরই এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (এএসপিএবি) প্রেসিডেন্ট এম এ হাকিম।

পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস রোধ করতে গতকাল রোববার সারা দেশের মোবাইল অপারেটর কোম্পানিগুলোকে ইন্টারনেট ধীর করে দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছিল বিটিআরসি। কথা ছিল, ১২ থেকে ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ধীরগতিতে চলবে ইন্টারনেট সেবা। পরীক্ষামূলকভাবে গতকাল রোববার রাত ১০টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ইন্টারনেট ধীরগতির রাখা হয়।

সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আজ সকালে ইন্টারনেট সেবা ধীর করে দেওয়া হয়। পরে নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী আবারও ইন্টারনেট সেবা স্বাভাবিক হয়ে আসে বলে জানান এম এ হাকিম।